ইতিহাস

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ মরহুম সামছউদ্দীন আহমদ-এর স্মরণে তার স্ত্রী বেগম রেশাতুন নাহার ২০০২ সালে তার ছয় ছেলে ও ২ মেয়ে এবং স্থানীয় শুভাকাঙ্খীদের নিয়ে সামছউদ্দীন-নাহার ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠা করেন। ২০০২ সালে ছোট একটি টিনের ঘরে স্বাস্থ্য, শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয় একই সাথে নিজস্ব বাসভবনের নীচতলায় শুরু হয় কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কার্যক্রম। সে কার্যক্রম এখন নিজ গ্রাম থেকে, ইউনিয়ন থেকে জেলা পর্যায়ে সুনামের সহিত পরিচালিত হচ্ছে।

 
   

সামছউদ্দীন-নাহার ট্রাস্ট উদ্ভোধন করছেন রত্নগর্ভা বেগম রেশাতুননাহার তার সাথে কবি মোহাম্মদ রফিক, মোহাম্মদ শফিক, মোহাম্মদ নাসের

বিদ্যালয়টিতে প্রাক প্রাথমিক থেকে শুরু করে মাধ্যমিক পর্যায়ের ছাত্রদের শিক্ষা প্রদান করা হচ্ছে। ব্যানবেইসের সূচকে বিদ্যালয়টি A+ ক্যাটাগরীর, একই সাথে প্রাথমিক সেকশনে প্রত্যেক বৎসর কয়েকটি A+ সহ শতভাগ পাস করছে। মাধ্যমিক পর্যায়ের জে.এস.সি ও এস.এস.সিতে শতভাগ পাস করছে। শিক্ষার কার্যক্রমের মান বাড়ানর জন্য নিরত্বর প্রচেষ্টা চলছে।

স্বাস্থ্য কার্যক্রমে স্থানীয় মহিলাদের স্বাস্থ্য শিক্ষায় সচেতন করার পাশাপাশি ইউনিয়নের সকল বিদ্যালয়ের শিশু কিশোরদের স্বাস্থ্য সচেতন করা হচ্ছে। একই সাথে প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করা হচ্ছে। প্রতিনিয়ত স্বাস্থ্য সেবার গুণগত মান বাড়ানর প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

কম্পিউটার শিক্ষায় প্রতিষ্ঠানটি বাগেরহাট জেলায় অত্যন্ত সুনাম অর্জন করেছে। এ প্রতিষ্ঠান থেকে এ যাবত অংশগ্রহণকারী সকল ছাত্র A+ উত্তীর্ণ হয়েছে।

.


© সুব্রত কুমার মুখার্জী, সামছউদ্দীন-নাহার ট্রাস্ট।